1. dainikbijoyerbani@gmail.com : দৈনিক বিজয়ের বানী : দৈনিক বিজয়ের বানী
  2. hasan@dainikbijoyerbani.com : Hasan :
  3. zakirhosan68@gmail.com : dev : dev
নৌকা ঈগলের রেশ কাটেনি এখনও, সাবেক ইউপি সদস্যের নেতৃত্ব হামলায় শিশুসহ আহত ৩ - dainikbijoyerbani.com
সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ০২:২৬ পূর্বাহ্ন
ad

নৌকা ঈগলের রেশ কাটেনি এখনও, সাবেক ইউপি সদস্যের নেতৃত্ব হামলায় শিশুসহ আহত ৩

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৮ মার্চ, ২০২৪
  • ২৬ Time View

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

সংসদ নির্বাচনের দুই মাস পার হলেও মোংলায় সহিংসতার রেশ কাটেনি এখনও। ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক চিলা ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য ও হত্যা মামলাসহ একাধিক মামলার আসামী হালিম হাওলাদারের নেতৃত্বে রবিবার (২৫মার্চ) রাতেও নৌকা প্রতীকের সমর্থকের উপর হামলা হয়েছে। এ হামলা থেকে রেহাই পায়নি ৮বছরের শিশুও। এ ঘটনায় হালিম হাওলাদারসহ ৪জনকে আসামী করে মোংলা থানায় এজাহার দায়ের হয়েছে।

এজাহার দায়েরকারী মোঃ বেল্লাল সরদার বলেন, গত ২৫মার্চ সন্ধ্যায় তার ৮বছরের শিশু সন্তান রাজা সরদারকে নিয়ে ঈদের জামা কাপড় কেনার জন্য তার জামাই সাইদুল শেখ ও চাচাতো ভাই আলামিন সরদার মোংলা শহরে যাচ্ছিলেন। কিন্তু পূর্ব শত্রুতার জেরে চাঁদপাই ইউনিয়নের কানাইনগর এলাকার তালতলা গ্রামে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা চিলা ইউনিয়নের ৫নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ও হত্যাসহ একাধিক মামলার আসামী হালিম হাওলাদার (৫০), তার বড় ভাই সাত্তার হাওলাদার (৫৬), ছেলে সোহাগ হাওলাদার (২৭) ও সোহেল হাওলাদার (৩৭)সহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজন মিলে নৌকার সমর্থক ও চিলা ইউনিয়নের ৫নম্বর ওয়ার্ডে হালিম হাওলাদারের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করা বেল্লাল সরদার, তার জামাই সাইদুল শেখকে কুপিয়ে যখম করেন। এ সময় বেল্লাল সরদারের কোলে থাকা ৮বছরের শিশু সন্তান রাজা হাওলাদারকে মাটিতে আচড়ে কিল ঘুষি দিয়ে আঘাত করা হয়। পরে তাদেরকে আহত অবস্থায় স্থানীয়রা মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।

এদিকে এ ঘটনায় সাবেক ইউপি সদস্য ও হত্যা মামলাসহ একাধিক মামলার আসামি হালিম হাওলাদারসহ চারজনকে আসামি করে মোংলা থানায় এজাহার দায়ের করেছেন বেল্লাল সরদার।

এদিকে থানায় এজাহার দায়ের কারণে ক্ষীপ্ত হয়ে হালিম হাওলাদারের ভাই আলম হাওলাদার ওরফে হাজী আলম বেল্লাল সরদারকে নানা রকম ভয়ভীতি প্রদর্শন করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এজাহারের সত্যতা স্বীকার করে মোংলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে,এম আজিজুল ইসলাম বলেন, এজাহারের তদন্ত চলছে, তদন্ত শেষে অবশ্যই কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ad

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
ad
ad
© All rights reserved 2022
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: সীমান্ত আইটি