1. dainikbijoyerbani@gmail.com : দৈনিক বিজয়ের বানী : দৈনিক বিজয়ের বানী
  2. zakirhosan68@gmail.com : zakirbd :
ভোলায় দফায় দফায় সংঘর্ষ, আহত-১৫ - dainikbijoyerbani.com
মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০২:০৯ পূর্বাহ্ন
ad

ভোলায় দফায় দফায় সংঘর্ষ, আহত-১৫

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৪ জুন, ২০২২
  • ২৯২ Time View

ভোলা প্রতিনিধি ॥

ভোলা সদরের পরানগঞ্জ এলাকায় কিশোর গ্যাং ভুট্ট সিকদারের ফেসবুকে ‘চাইনিজ ছুড়ি’সহ দেওয়া পোস্টে ‘হা হা’ রিয়েক্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (১৩ জুন) সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত রড, লাঠিসোটা, ইট পাটকেল নিয়ে উভয়পক্ষ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ও ডিবির একটি টিম ও কাচিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এতে মো. জামাল, মো. আনোয়ার, মো. মোসলেউদ্দিন, মো. মোকাম্মেলসহ উভয় পক্ষের ১৫ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। আহতরা ভোলা সদর হাসপাতালে ও প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা নিয়েছে। এ ঘটনায় শাহিন প্লাজার জানালার গ্লাস ও ব্যাংকের এসি ভেঙ্গে গেছে। এছাড়াও পার্শ্ববর্তী দোকানগুলোতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ মার্কেটের মালিক ও ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

সূত্রে জানা গেছে, ভোলা সদরের ২নং ইলিশা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের পরানগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা মোঃ বাদশা সিকদারের ছেলে কিশোর গ্যাং মো. ভুট্ট শিকদার তার ফেসবুকে ‘চাইনিজ ছুড়ি’সহ একটি পোস্ট দেয়। ওই পোস্টে একই এলাকার মোশারফ হোসেন জান্টুর ছেলে মো. রাজিব মজগুনী ‘হা হা’ রিয়েক্ট দেয়। এই রিয়েক্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাং ভুট্ট শিকদার মেসেজ ও কল করে রাজিব মজগুনীকে হুমকি ধামকি প্রর্দশন করে এবং কলেজ মাঠে দেখা করতে বলে। গত রবিবার (১২ জুন) বিকালে রাজিব মজগুনী ভুট্ট শিকদারের সাথে দেখা করতে আসলে পরানগঞ্জ বাজারের ব্রীজের উপর উভয়ের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে সন্ধ্যায় উভয় যুবকের অভিভাবকের উপস্থিতিতে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা শালিসি বৈঠকের মাধ্যমে সমাধান করে দুজনকে মিলমিশ করিয়ে দেন। পরদিন সোমবার (১৩ জুন) বিকালে রাজিব মজগুনী পরানগঞ্জ বাজারের ব্রীজ উপর আসে। এসময় এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুনরায় কিশোর গ্যাং ভুট্ট সিকদার ও তার বন্ধু শান্ত কাজী, রায়হান, রনি, রিয়াজসহ ১৫-২০ জন মিলে রাজিব মজগুনীকে কলেজের মাঠে নিয়ে যায়। সেখানে চাবক দিয়ে রাজিবকে প্রচন্ড আঘাত করে ভুট্ট ও তার বাহিনী। এসময় রাজিবের গলায় কিশোর গ্যাং ভুট্ট ছুড়ি ধরে বলে তোরে মেরে ফেলবো। আমার বাবা অনেকগুলো মার্ডার করেছে কিছুই হয়নি। তোকেও মেরে ফেলবো। রাজিবকে মারধরের খবর পেয়ে তাদের বাড়ির লোকজন গিয়ে ভুট্ট বাহিনীর হাত থেকে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। এই ঘটনা নিয়ে ওই দিন রাতে পরানগঞ্জ বাজারের উপর কাচিয়া ইউনিয়নের কাজী গ্রুপের মামুন কাজী, মাসুদ কাজী ও ইলিশা ইউনিয়নের কামাল মোল্লা, সোহাগ মজগুনী, ইসমাইল মজগুনী গ্রুপের লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে দুই গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এরপর দুই গ্রুপ দুই দিকে চলে যায়। এর কিছুক্ষণ পর কাজী গ্রুপ ও মজগুনী গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। দুই পক্ষ ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এই তান্ডব চলছে প্রায় ঘন্টা ব্যাপী। ইটপাটকেলের আঘাতে উভয় পক্ষের প্রায় ১৫জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে মো. জামাল, মো. মোসলেউদ্দিন, মো. মোকাম্মেলকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং বাকীদের প্রাথমকি চিকিৎসা দেওয়া হয়। দুই পক্ষের এই ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষের ঘটনায় ব্যবসায়ী ও ঘর মালিকরা অনেক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। বাজারের শাহিন প্লাজার ৫টি জানালার গ্লাস ও ব্যাংকের এসি ভেঙ্গে চুরমার হয়ে যায়। দীপা ইলেকট্রনিকের দুইটি গ্লাসের সুকেজ, তৃপ্তি হোটেলের ডিজিটাল মেশিনের গ্লাস ও সোহাগ স্টোরের ফ্রীজের গ্লাস ভেঙ্গে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
রাজিব মজগুনী বলেন, আমি পরানগঞ্জ বাজারের ব্রীজের কাছে দাঁড়িয়ে রয়েছি। রবিবারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাং ভুট্ট সিকদার ও তার বন্ধু শান্ত কাজী, রায়হান, রনি, রিয়াজসহ ১৫-২০ জন মিলে আমাকে কলেজের মাঠে নিয়ে যায় এবং সেখানে চাবক দিয়ে প্রচন্ড আঘাত করে। এবং গলায় ছুড়ি ধরে বলে তোরে মেরে ফেলবো। পরবর্তীতে আমাদের বাড়ির লোকজন খবর পেয়ে আমাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। তারা উদ্ধার না করলে এই সন্ত্রাসী কিশোর গ্যাং ভুট্ট সিকদার আমারে মেরেই ফেলতো। রাজিব মজগুনী আরো বলেন, ওদের সাথে আমার কোন শত্রুতা নাই, সামান্য ফেসবুক পোস্টে একটা রিয়েক্ট দেয়া নিয়ে এতকিছু।

অন্যদিকে কাচিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জহুরুল ইসলাম নকীব ও ইলিশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আনোয়ার হোসেন ছোটন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা এবং কঠোর বিচারের আশ্বাস দেন।

ভোলা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) এনায়েত হোসেন বলেন, ফেসবুকে ‘হা হা’ রিয়েক্ট দেওয়াকে কেন্দ্র করে পরানগঞ্জ বাজারে মজগুনী গ্রুপ ও কাজী গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে আমরা পুলিশের কয়েকটি টিম নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছি। এই ব্যাপারে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ad

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
ad
ad
© All rights reserved 2022
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: সীমান্ত আইটি